বিয়ের দাবিতে কলেজছাত্রীর এ কী কাণ্ড!

বিয়ের দাবিতে কলেজছাত্রীর এ কী কাণ্ড!

ঢাকা অফিস : চাঁদপুরে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন মনি আক্তার (১৮) নামের এক কলেজছাত্রী। বিয়ে না করলে প্রয়োজনে প্রেমিকের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নেবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।শনিবার (১২ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টায় কচুয়া উপজেলার ১১নং গোহাট দক্ষিণ ইউনিয়নের চাঁপাতলী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
মনি আক্তার উপজেলার ১০নং গোহাট ইউনিয়নের নুরপুর গ্রামের আব্দুল করিমের মেয়ে। সে রহিমানগর শেখ মুজিবুর রহমান ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী।মনি বলেন, গত বছরের ১৭ জুলাই থেকে উপজেলার চাপাতলী গ্রামের আলী আহমেদের পুত্র সুজনের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক। এরই ফাঁকে সুজন বিয়ের প্রলোভনে শাহরাস্তির নিজমেহের এলাকায় বড় ভাইয়ের শ্বশুর বাড়ি, শাহরাস্তি, হাজীগঞ্জসহ বেশকিছু জায়গায় তাকে নিয়ে ঘুরেছেন।
গত ৩১ অক্টোবর মনি আক্তার প্রথমবার বিয়ের দাবিতে সুজনের বাড়িতে অবস্থান নেয়। সে সময় সুজনের আত্মীয়স্বজন ও অন্যরা বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিয়ে তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেন। তবে সমাধান না পাওয়ায় পুনরায় বিয়ের দাবিতে সুজনের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছে। এ সময় সুজনের পরিবারের লোকজন মারধর এবং টেনে-হেঁচড়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয় বলে জানান মনি আক্তার।তিনি আরও জানান, সুজন বিয়ের কথা বলে বিগত দিনে নানাভাবে প্রতারণা করেছে। বিয়ে না করলে আমি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হবো।
মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সুজনের ভাই মাসুদ মিয়া জানান, বহিরাগত লোকজন তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে ওই মেয়েকে ফুঁসলিয়ে তাদের বাড়িতে পাঠিয়েছে। মেয়েটির সঙ্গে তার ভাই সুজনের কোনো প্রেমের সম্পর্ক নেই।কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মহিউদ্দিন জানান, মেয়েটি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি করার পর বিষয়টি জেনেছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। চিকিৎসা শেষে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।