ইংলিশ চ্যানেল পেরিয়ে আসা অভিবাসীদের থামাতে

সমুদ্রপথে নিরাপত্তার জোরদার

সমুদ্রপথে নিরাপত্তার জোরদার

আজকাল অনলাইন: ব্রিটেনে যাতে অবৈধভাবে ইমিগ্রেন আসতে পারে সেজন্য সব সময়ই সরকার সতর্ক থাকলেও কিছুতেই অবৈধ ইমিগ্রেন ঠেকানো যাচ্ছে না। আকাশ পথ, স্থল পথ কন্ট্রোল করতে পারলেও সমুদ্র পথ দিয়ে প্রতিদিনই অবৈধ ভাবে প্রবেশ করছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ।ইংলিশ চ্যানেল পেরিয়ে আসা অভিবাসীদের থামাতে এই সপ্তাহ থেকে ফ্রান্স সৈকতে টহলরত কর্মকর্তাদের সংখ্যা দ্বিগুণ হবে, যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব প্রীতি প্যাটেল ঘোষণা করেছেন।
তার ফরাসী সমকক্ষের সাথে বৈঠকে প্রীতি প্যাটেল সম্মত হওয়া আরও পদক্ষেপের অংশ। অফিসারদের চোরাচালানকারী ও অভিবাসীদের সন্ধানের জন্য “বর্ধিত” নজরদারি যেমন ড্রোন এবং রাডার দ্বারা সহায়তা করা হবে।এ বছর হাজার হাজার অভিবাসী ছোট নৌকায় করে যুক্তরাজ্যে পৌঁছেছেন। হোম অফিস জানিয়েছে, শুক্রবার চারটি নৌকায় ৫৯ জন লোক চ্যানেলটি পেরিয়েছিল।
 এমএস প্যাটেল বলেন যে ফরাসি টহল ও বুদ্ধি ভাগ করে নেওয়ার কারণে “আমরা ইতিমধ্যে ফরাসী সৈকতে কিছু কম অভিবাসী দেখতে পাচ্ছি”। “আমরা আজ যৌথভাবে সম্মিলিত যে পদক্ষেপটি নিয়েছি তা হল ফ্রান্সের মাটিতে পুলিশ অফিসারদের সংখ্যা দ্বিগুণ করা, নজরদারি বাড়িয়েছি এবং চ্যানেল ক্রসিংগুলি পুরোপুরি অবিশ্বাস্য করতে আমাদের
অংশীদারিত্বের মিশনে আরও একটি পদক্ষেপের প্রতিনিধিত্ব করবে, ফ্রান্সের মাটিতে পুলিশ অফিসারদের সংখ্যা দ্বিগুণ করেছি।” ফরাসী টহল ঘোষণায় হোম অফিস আরও কত কর্মকর্তা মোতায়েন করবে তা জানায়নি।
 এম প্যাটেল আরও বলেন যে “একটি নতুন আশ্রয় ব্যবস্থা” থাকবে যা “দৃঢ় এবং ন্যায্য” এবং প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে আগামী বছরের জন্য নতুন আইন হবে। ব্রেক্সিটের পর বৃটিশ সরকার সারা বিশ্বের ইমিগ্রেন দের জন্য সমান সুযোগে অভিজ্ঞ লোক আনার ঘোষনা দিয়েছেন। সেজন্য অবৈধ লোক যাতে না আসতে পারে সে জন্য বেশী কড়াকড়ির ব্যাবস্থা করছেন। অনেক সময়ই দেখা যায় অবৈধ পথে প্রবেশ করতে যেয়ে অনেক তাজা প্রাণ চলে ঝড়ে গেছে।সবদিক বিবেচনা করে ব্রিটিশ সরকারের হোম সেক্রেটারী প্রিতি প্যাটেল ঘোষনা দেন অবৈধ ভাবে যেন আর কেউ ব্রিটেনে প্রবেশ না করতে  পারেন। সেজন্য সমুদ্র পথ গুলিতে আরো দ্বিগুন নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগ করা হবে।