স্থানান্তর হচ্ছে ইস্ট লন্ডনে

লন্ডন মেয়রের অফিস

লন্ডন মেয়রের অফিস

সিটি প্রতিবেদক:  লন্ডন মেয়র অফিস সেন্ট্রাল লন্ডন থেকে ইস্ট লন্ডনে স্থানান্তর করা হবে। এতে বছরে ৫ মিলিয়ন পাউন্ডের বেশি ব্যয় কমবে গ্রেটার লন্ডন অথোরিটির।আগামী বছরের শেষের দিকে অফিসটি স্থানান্তর করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। মঙ্গলবার লন্ডন মেয়র সাদিক খান নিশ্চিত করেছেন, ২০২১ সাল শেষের দিকে টাওয়ার ব্রিজের পাশের গ্লাস বিল্ডিং থেকে সিটি হল নিউহ্যামের রয়েল ডকের পাশে ছোট্ট একটি বিল্ডিংয়ে স্থানান্তর করা হবে। এতে গ্রেটার লন্ডন অথোরিটির পাঁচ বছরে অন্তত ৬১ মিলিয়ন পাউন্ড ব্যয় কমবে।
টাওয়ার ব্রিজের পাশে গ্লাস বিল্ডিং বেসরকারী মালিকানাধীন। বছরে এর ভাড়াই আসে প্রায় সাড়ে ৯ মিলিয়ন পাউন্ড। অন্যদিকে নিউহ্যামের রয়েল ডক সাইডের ক্রিস্টাল বিল্ডিংটি জিএলএ’র মালিকানাধীন। তবে এখানে দু’শর বেশি স্টাফের জায়গা হবে না। সিটি হলে বর্তমানে ১১শ’র বেশি স্টাফ রয়েছে। এ কারণে সাউথার্কে জিএলএ’র আংশিক স্টাফ স্থানান্তর করা হবে এবং কিছু স্টাফকে দীর্ঘ সময়ের জন্যে বাড়ি থেকে কাজ করার সুযোগ দেওয়া হবে অথবা পর্যায়ক্রমে অফিস এবং বাড়ি, এ দুইয়ে মিলিয়ে স্টাফদের কাজের সুযোগ করে দেওয়া হবে।
করোনার কারণে আগামী দেড় বছরে শুধু কাউন্সিল ট্যাক্স এবং বিজনেস রেইট থেকেই সিটি হলের আয় কমে যাবে প্রায় ৫শ মিলিয়ন পাউন্ড। অন্যদিকে করোনার ঘাটতি কাটিয়ে উঠার জন্যে পাবলিক সার্ভিস, মেট পুলিশসহ সিটি হলের বিভিন্ন সেক্টর থেকে প্রায় ৫শ মিলিয়ন পাউন্ড ব্যয় কমাতে হবে লন্ডন মেয়রকে। এ কারণ গত জুনে সিটি হল গ্লাস বিল্ডিং থেকে স্থানান্তর করার ঘোষনা দিয়েছিলেন লন্ডন মেয়র সাদিক খান। মঙ্গলবার চূড়ান্ত ঘোষণা দিলেও সিটি হল স্থানান্তরের বিপক্ষে কথা বলতে শুরু করেছেন সেন্ট্রাল লন্ডন কেন্দ্রীক কিছু রাজনৈতিক।